জীবনকে উন্নত করার জন্য একটা পরামর্শ

জীবনকে উন্নত করার জন্য একটা পরামর্শ

একটা পুরনো চীনা গল্প রয়েছে একটি ছেলেকে নিয়ে যে একজন কুংফু মাস্টারের সাথে দেখা করে তার ছাত্র হওয়ার প্রত্যাশায়।
তখনকার দিনগুলোতে, আপনাকে মাস্টারের বাড়ির সামনে কয়েকদিন বসে থাকতে হতো, তাঁর বাইরে আসার অপেক্ষায়।
তাই ছেলেটি বসে আছে, ধৈর্য ধরে অপেক্ষা করছে।



ম্যামের প্রতি ভালোবাসা

অবশেষে মাস্টার বেরিয়ে এলেন।
তুমি কী চাও?
আমি ১০ বছর ধরে কুংফু অনুশীলন করছি। আমি আপনার ছাত্র হতে চাই এবং আপনার সাথে কুংফু অনুশীলন করতে চাই।
মাস্টার তাকে বসার জন্য বাড়িতে আমন্ত্রণ জানালেন।
তুমি কতটা কুংফু জানো?
ছেলেটি তার জীবন উৎসর্গকৃত সমস্ত কুংফু পদক্ষেপের একটি বিস্তৃত বর্ণনা দিল।
মাস্টার মাথা নেড়ে নেড়ে মনোযোগ দিয়ে শুনলেন।
ঠিক আছে, আমি তোমাকে কুংফু শেখাব। তবে প্রথমে তোমাকে একটি পরীক্ষায় পাস করতে হবে।
ছেলেটি ভীত হল। সে বছরের পর বছর ধরে এই মুহুর্তের জন্য অপেক্ষা করছে এবং মাস্টারকে সন্তুষ্ট করার আশায় নিজের চিতাবাঘ-কুংফু স্টাইল প্রদর্শনের জন্য নিজেকে মানসিকভাবে প্রস্তুত করা শুরু করল।
তারপরে মাস্টার ছেলেটার জন্য এক কাপ চা ঢালতে লাগলেন। কাপটি পূর্ণ হয়ে যাওয়ার পরে, মাস্টার কাপটিতে আরও চা ঢালতে থাকে যতক্ষণযদি তুমি কাপের কিনার বেয়ে পড়ে যেতে না দিয়ে এই কাপটিকে আরও চা ঢালতে পারো তবে তুমি পরীক্ষাটি পাস করবে।
ছেলেটার চোখ বড়বড় হয়ে গেলো এবং কাঁধে টান পড়ল। সে ভেবেছিল তাকে তার কুংফু স্টাইল দেখাতে হবে, চা ঢালতে নয়। এই পাগলাটে পরীক্ষাটি কেমন?!
সে জানত কাপে আরও চা ঢালার কোনো উপায় নেই…এমনকি আর এক ফোঁটাও খুব বেশি হবে। সে হতাশ হয়ে পড়েছিল।
মাস্টার এটা অসম্ভব। আমি ওই কাপে আর চা ঢালতে পারবো না।ম্যাট্রিক পরীক্ষা পাশ করতে তার সাত বছর লেগেছে। প্রতিবার রেজাল্ট আঊট হবার পর তার ধারণা হত প্রিন্টিং মিস্টেইকের কারণে তার নাম আসেনি। তাকে নিয়ে হাসাহাসি লেগেই থাকত।


টিউশনি করতে গিয়ে কখনো বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়েছেন?

Post a Comment

0 Comments